MASTERS, MASTERS/KAMIL, Summary, Summary & Analysis, Themes

In Memory of W. B. Yeats W. H. Auden Translation in Bengali

In Memory of W. B. Yeats – W. H. Auden – Translation in Bangla

ডব্লিও. বি. ইয়েটস্-এর স্মরণে

তিনি (YEATS) মারা গেলেন প্রচন্ড শীতের মৌসুমে

যখন নদীগুলো বরফাচ্ছন্ন, বিমান বন্দরগুলো জনশূন্য

বরফে চেহারা বদলে দিয়েছিল জনচত্তরের শিল্পকর্ম গুলোর,

দিবসের শেষে ব্যারোমিটারের পারদ

নেমে আসে আরও নীচে

আবহাওয়া মাপার যন্ত্রপাতির সাথে আমরা একমত হয়েছি

তার মৃত্যুর দিনটিও ছিল অন্ধকার আর ঠান্ডা।

অসুস্থতাকে ছুড়ে ফেলে –

নেকড়ে বাঘ যেন দৌড়ে গেল চিরসবুজ বনের মধ্যে।

পল্লী বাঁকে প্রবাহিত নদী, প্রলুব্ধ হয়নি সজ্জিত পোতাশ্রয়ের দিকে

বিলাপ করে

মানুষ তার মৃত্যু থেকে তার কবিতাকে আলাদা করে রেখেছে

কিন্তু তার জন্যে সেটা ছিল শেষ বিকেল (মৃত্যুর দিন বিকেলবেলা)

নার্সদের জন্যেও শেষ বিকেল, আর মানুষের

মাঝে তার মৃত্যু নিয়ে নানা গুজব ছড়ায়

তার দেহের প্রদেশগুলো করল বিদ্রোহ

In Memory of W. B. Yeats W. H. Auden Translation in Bengali

তার সৃষ্টিশীল মনের শ্যামল প্রান্তর খালি হয়ে গেল।

তাঁর দেহ রাজ্যে ধীরে ধীরে নীরবতা করল আক্রমণ,

তার চেতনার প্রবাহ থেমে গেল; নিজের প্রশংসাকারী নিজে হয়ে যায়।

এখন তার নাম ছড়িয়ে পড়েছে শত শত শহর বন্দরে

অপরিচিত জনেরাও তাঁর প্রতি পবিত্র শ্রদ্ধা নিবেদন করছে।

কামনা করে সবাই স্বর্গের বনে যেন তিনি সুখী হন

চেতন হয়ে বিদেশী আইন শাস্তি পেতে লাগল

এ মৃত কবির কবিতা

পরিবর্তিত হতে লাগল তাঁর পাঠকদের মধ্যে

যেমন করে ক্ষুদ্র কবরে তার দেহটি পরিবর্তন হতে লাগল।

আগামী দিনের গুরুত্বপূর্ণ কাজ এবং গোলমাল শুরু হয়ে গেছে

যথারীতি শেয়ার বাজারে দালালদের হাঁকডাক শুরু হয়ে গেছে।

গরীবরা যথারীতি তাদের অভ্যস্থ হয়ে যাওয়া

ভোগান্তিতে ভুগছে,

আর তার দেহের প্রতিটি কোষ আজ মুক্ত স্বাধীন হয়েছে।

অল্প কিছু লোকই তার মৃত্যুর এই দিনটাকে স্মরণ করবে

যেমন করে চিন্তা করে কেউ বিশেষ কোন দিবসের কথা

যেদিন সে ছোটোখাটো কিছু ব্যতিক্রমী কাজ করেছে।

যে ব্যাপারে আমরা একমত, তা হলো।

তার মৃত্যুর দিনটা ছিল কুয়াশা ঘেরা শীতের দিন।

তুমি ছিলে সাদাসিদা আমাদেরই মতো:

তবু তোমার দেয়া উপহার (কবিতা) টিকে আছে।

শেষ হয়ে গেছে যৌলসী মহিলাদের তোমার

প্রতি প্রশংসা, ক্ষয় হয়ে গেছে তব দেহ,

উত্তেজিত আইরিশরা আঘাত করেছে তোমাকে

কবি হওয়ার জন্যে।

আজও আইরিশরা যুদ্ধাংদেহী, আজও আছে সেথায় যুদ্ধের ঘনঘটা

কবিতা সেখানে কোন পরিবর্তন ঘটাতে পারেনি, কবিতা টিকে আছে

কবির আত্মায়, শাসকরা কবিতাকে

কখনই সহ্য করে না, চেতনা প্রবাহিত

হয়ে যায় দেহের আনাছে কানাছে।।

নতুন নতুন কত শহর যেগুলোর কথা আমরা

জানি পতন হয়েছে সবগুলোর, শুধু

টিকে আছে তোমার কবিতা-মানুষের মুখে মুখে।

পৃথিবী (কবর) গ্রহণ করল তার সম্মানিত অতিথিকে (ইয়েটসকে)

উইলিয়াম ইয়েটস্ শুয়ে পড়লেন কবরে বিশ্রামের তরে।।

আইরিশ কবিতার জাহাজকে (ইয়েটস্) শুয়ে পড়তে দাও

আজ যে জাহাজ কবিতাশূন্য।

দুঃস্বপনের আঁধার রাতে

ইউরোপের কুকুরগুলো (সাম্রাজ্যবাদী শাসকগুলো) ডাকছে শুধু ঘেউ ঘেউ

জীবন্ত জাতিগুলো তবুও বিলম্ব করছে

ঘৃণায় তারা পরস্পরের থেকে বিচ্ছিন্ন।

ইউরোপ আজ বুদ্ধিবৃত্তিহীন।

প্রত্যেকের মুখের দিকে তাকালে

দেখা যায় প্রত্যেকের চোখে, করুণার সমুদ্র

আজ বরফে জমে গেছে।

অনুসরণ কর কবিকে, আর ন্যায়নীতিকে

আঁধার রাতের গহন থেকে (যুদ্ধ পরবর্তী ইউরোপ থেকে)

(যুদ্ধ বিনাশ সত্ত্বেও) তোমার মুক্ত কণ্ঠ (কবিতা)

ডাকছে মোদের করতে আনন্দ।

কাব্য লেখার দক্ষতা দিয়ে

যুদ্ধের অভিশাপকে বদলে দিয়েছ আশীর্বাদে।

গেয়েছ মানবতার পরাজয়ের গাথা,

দুঃখের গাঁথা আনন্দচিত্তে।

ইউরোপীয়ান তথা সমগ্র মানবের

হৃদয়ের মরুতীরে।

আর্শীবাদের ঝর্ণাধারা বইয়ে দাও

আত্মকেন্দ্রীকতার বন্দী দশায়

মুক্ত কর মানুষকে, তারপর শেখাও

কিভাবে গুণের স্বীকৃতি দিতে হয়।

১। ব্যারোমিটারের পারদ নেমে আসে আরো নীচে – পারদ নীচে নেমে আসা; আবহাওয়া আরও

শীতল হওয়ার পূর্বাভাস দেয়।

২। নেকড়ে বাঘ – কবি ইয়েটসকে বোঝানো হয়েছে।

৩। তার কবিতাকে আলাদা করে রাখা হয়েছে – অর্থাৎ তার মৃত্যুর সাথে সাথে তাঁর কবিতার মৃত্য হয়নি। শিল্পের কখনও মৃত্যু হয় না। তাই তাঁর মৃত্যু থেকে তাঁর শিল্প আলাদা।

৪। নিজের প্রশংসাকারী নিজে হয়ে যায় – মরে তিনি প্রশংসার পথ প্রশস্ত করেছেন।

৫। আইন শাস্তি পেতে লাগল – ইংল্যান্ড যে আইনে তাকে গ্রেফতার করল।

৬। আগামী দিনের গুরুত্বপূর্ণ কাজ এবং গোলমাল শুরু হয়ে গেছে – ইয়েটস্ এর মৃত্যু নিয়ে বেশী মানুষের মাতামাতি নেই। তাঁরা যথারীতি আগামী দিনের কাজকর্ম শুরু করে দিয়েছে । শেয়ার বাজারে দালালদের হাঁক ডাক, গরীবের ভোগান্তি সবই যথা নিয়মে চলছে।

—————————————————————————————————————————————–

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *